উনিশ শতকের বাংলাদেশে নারীশিক্ষা বিস্তারে ইউরোপীয় উদ্যোগের বিবরণ দাও।

সূচনা: আঠারো শতক ছিল ভারতের শিক্ষা-সংস্কৃতির ক্ষেত্রে এক ‘অন্ধকার যুগ’। উনিশ শতকে সেই অন্ধকার যুগের অবসান ঘটে। এই সময় থেকে ইউরোপীয় উদ্যোগে নারীশিক্ষার সূচনা হয়।

মিশনারি উদ্যোগ: বাংলাদেশে নারীশিক্ষা বিস্তারে প্রথম উদ্যোগী হয় খ্রিস্টান মিশনারিরা। তাঁরা এদেশে নারীশিক্ষা বিস্তারের জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তা হল—

১] ক্যালকাটা ফিমেল জুভেনাইল সোসাইটি প্রতিষ্ঠা

২] ফরেন স্কুল সোসাইটি প্রতিষ্ঠা

ব্যক্তিগত উদ্যোগ: ড্রিংকওয়াটার বেথুন হিন্দু বালিকা বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন (১৮৪৯ খ্রি.)। মেরি কার্পেন্টার শিক্ষিকা তৈরির জন্য ফিমেল নর্মাল স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন (১৮৬৬ খ্রি.)।

মূল্যায়ন: এই সমস্ত উদ্যোগের ফলে উনিশ শতকের বাংলাদেশে নারীশিক্ষার সূচনা হয় ও গতি আসে। রক্ষণশীল সমাজ নারীশিক্ষার বিরোধিতা করতে থাকে। কিন্তু পাশ্চাত্য শিক্ষায় শিক্ষিত বুদ্ধিজীবীরা নারীশিক্ষাকে স্বাগত জানায়। সরকার নারীশিক্ষায় সাহায্য করে। এইভাবে উনিশ শতকের বাংলাদেশে ইউরোপীয় উদ্যোগে নারীশিক্ষার প্রসার ঘটে।

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা
error: সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত